আফগান ক্রিকেটারকেই গুণতে হলো জরিমানা!

খেলাধুলা

বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের পরীক্ষায় নিজেদের দলকে বলতে গেলে একাই কাঙ্কিত লক্ষ্যে টেনে তুলেছেন আফগানিস্তানের উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শেহজাদ। তিনি গত মাসের বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ফাইনালে হয়েছিলেন ম্যাচ সেরা খেলোয়াড়। এবার সেই আফগান ক্রিকেটারকেই গুণতে হলো জরিমানা। বোর্ডের অনুমতি ব্যতীত পাকিস্তানের এক ঘরোয়া টুর্নামেন্টে খেলেছিলেন শেহজাদ। সাথে পাকিস্তানের বসতি ছেড়ে নিজদেশ ফিরে আসারও আদেশ দেওয়া হয়েছে তাকে।

পাকিস্তানের পেশোয়ারায় জম্মগ্রহন করেছিলেন শেহজাদ। তাই মাঝে মধ্যে সেখানে থাকেন তিনি। সেই সুবাধে সেখানকার স্থানীয় এক ঘরোয়া টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। সেটা দোষের কিছু নয়, তবে বোর্ডের থেকে ছাড়পত্র না নিয়েই মাঠে নামায় প্রায় চার হাজার মার্কিন ডলার জরিমানা দিতে হচ্ছে তাকে। শুধু জরিমানাই নয় বোর্ড শেহজাদকে আদেশ দিয়েছে সেখান থেকে নিজ দেশে ফিরে আসতে।

পাকিস্তানের পেশোয়ার আফগানিস্তান সীমান্তের সাথেই অবস্থিত। তাই যুদ্ধাহত দেশটির বিপুল জনগণ বসবাস করছেন পেশোয়ারে। সেখানে অনেক ক্রিকেটারও থাকেন। তবে গত সপ্তাহেই আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি) শক্ত নিয়ম করেছে সেসব ক্রিকেটারকে ফিরে আসতে হবে দেশে। অন্যথায় তারা থাকবে না বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে।

বোর্ড সভাপতি আতিফ মশাল জানিয়েছেন শেহজাদ বোর্ডের নীতিমালা ভাঙ্গার কারণেই এই শাস্তি দেয়া হয়েছে। তার ভাষ্যে, ‘এসিবির অনুমতি ছাড়া কোনো আফগান খেলোয়াড় কিংবা কর্মকর্তা অংশ নিতে পারবেনা ভিনদেশি টুর্নামেন্টে। অথচ সে পাকিস্তানে ক্লাব পর্যায়ের টুর্নামেন্ট খেলেছে কিন্তু বোর্ডের অনাপত্তিপত্র নেয়নি। যার কারণেই তাকে শাস্তি প্রদান করা হয়েছে।’

শেহজাদ এর আগেও একবার জরিমানা গুণতে হয়েছে শেহজাদকে। ২০১৭ সালের প্রায় পুরোটা সময়ই মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে তাকে। ডোপ টেস্টে পজিটিভ কারণে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার পড়েন তিনি। প্রায় একবছর পর চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে জিম্বাবুয়েতে আয়োজিত বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের লড়াইয়ে মাঠে ফেরেন তিনি।

-ফেসবুক কমেন্টস-

মন্তব্য