হতাহতদের ৪৬ স্বজন নেপালে পৌঁছেছেন

জাতীয়

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় হতাহতদের ৪৬ স্বজনকে নিয়ে কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স। মঙ্গলবার সকাল ৮টা ৪০মিনিটে বিএস-২১১ ফ্লাইটে ঢাকা ছেড়ে যায়। ইউএস বাংলার রিজার্ভেশন এক্সিকিউটিভ আবদুল্লাহ আল মাসুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, হতাহতদের স্বজনদের সঙ্গে এয়ারলাইন্সটির ৭ কর্মকর্তাও রয়েছেন। সোমবার নেপালের স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০মিনিটে ত্রিভুবন বিমানবন্দরে অবতরণকালে রানওয়ে থেকে ছিটকে গিয়ে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। ঢাকা থেকে কাঠমান্ডুগামী ওই বিমানে ৬৭ জন যাত্রী ও চারজন ক্রু ছিলেন। এদের মধ্যে দুই শিশুসহ ৩৩ বাংলাদেশি ছিলেন।
এয়ারলাইন্সে বিধ্বস্ত বিমানের কেবিন ক্রু নাবিলা ফারহিনের ভাসুর বাবুল হোসেন জানান, আমরা জানতাম নাবিলা ওই ফ্লাইটে ছিলেন। তবে ইউএস বাংলা আমাদের কিছু জানায়নি। নেপাল গিয়েই নিশ্চিত হতে পারবো।

দুর্ঘটনায় নিহত তাহিরা তানভীন শশির বাবা ডাক্তার রেজা জামান এই ফ্লাইটে নেপাল পৌঁছেছেন। শশির খালাতো ভাই হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক কাজী ইকবাল করিম। কাল সন্ধে পৌনে ৭টায় রিজেন্ট এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে ঢাকা ত্যাগ করেন।
ওই ফ্লাইটে সিভিল এভিয়েশনের এক্সিডেন্ট এক্সপার্ট সারোয়ার ভুঁইয়া ও ইউএস বাংলার ক্যাপ্টেন লুৎফর রহমান নেপালের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন।
নবদম্পতি মিনহাজ বিন নাসির ও আঁখি মনি জেসি ফারিয়াও ছিলেন ওই ফ্লাইটে। জেসির ভাই সাকিব রহমান জানান, মরদেহ আনতে ফ্লাইটে চরে আপুর বন্ধুরা গেছেন। এখন অপেক্ষায় আছি তাদের।

-ফেসবুক কমেন্টস-

মন্তব্য