রবীন্দ্রনাথ নোবেল বর্জন করেছিলেন, ফের বিতর্কিত মন্তব্য বিপ্লবের

এশিয়া জাতীয় সাহিত্য

একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করেই যাচ্ছেন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সদ্য নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এবার তার মন্তব্য, ‘ইংরেজদের বিরোধিতায় নোবেল বর্জন করেছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।’ বুধবার রবীন্দ্রজয়ন্তীতে এক অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রীর ওই মন্তব্যে ব্যঙ্গের পাশাপাশি সমালোচনার ঝড় উঠেছে। উদয়পুরের পুরনো রাজবাড়িতে ভুবনেশ্বরী মন্দিরের চত্বরে শুরু হয়েছে রাজর্ষি উৎসব। গতকাল তারই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিপ্লব। সেখানে ভাষণ দিতে গিয়ে তার মন্তব্য, ‘ইংরেজ সরকারের বিরোধিতা করে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নোবেল পুরস্কার বর্জন করেছেন।’

এর আগেও, একাধিক বার এমন বাক্য-বিভ্রাট ঘটিয়েছেন বিপ্লব। কখনো বলেছেন, ‘মহাভারতের যুগেও ইন্টারনেট ছিল। তা না হলে সঞ্জয় কিভাবে ধৃতরাষ্ট্রকে কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধের ধারাবিবরণী দেবেন?’ আবার কখনো তার পরামর্শ, ‘সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদেরই সিভিল সার্ভিসে যাওয়া উচিত। মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারদের নয়।’ নতুন প্রজন্মের কাছে নিজস্ব ভঙ্গিতে তার পরামর্শ ছিল, ‘চাকরির বদলে গরুর দুধ বিক্রি করলে ১০ বছরের মধ্যে ১০ লক্ষ টাকার মালিক হয়ে যাবেন।’ প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরী ডায়না হেডেনকে নিয়ে তার পর্যবেক্ষণ, ‘ডায়না হেডেন এমন কিছু সুন্দরী নন যে তাকে বিশ্বসুন্দরী করতে হবে।’

নিজের মন্তব্য অবিচল থাকলেও বিপ্লবকে বিঁধতে ছাড়েননি বিরোধীরা। কংগ্রেসের প্রাক্তন বিধায়ক তথা মুখপাত্র তাপস দে বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি, যে বিষয়ে ভাষণ দিতে যাবেন তা নিয়ে আগে থেকে জেনে বা পড়াশোনা করে গেলে ভাল হয়। রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে এই বক্তব্যটি খুবই দুর্ভাগ্যজনক।’ তাপস দে’র আরো মন্তব্য, ‘ওর ভাষণে প্রতিক্রিয়া দিতে লজ্জাবোধ হয়।’ টাইমস অব ইন্ডিয়া।

-ফেসবুক কমেন্টস-

মন্তব্য