‘বছরে ৫ বিলিয়ন ডলার নিয়ে যাচ্ছে বিদেশিরা’

অর্থনীতি

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, বাংলাদেশ থেকে বিদেশি কর্মীরা ৫ বিলিয়ন ডলার পরিমাণ অর্থ চাকরির মাধ্যমে আয় করে নিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানগুলো দক্ষ জনশক্তির অভাবে বিদেশিদের নিতে বাধ্য হচ্ছে। যতো দ্রুত সম্ভব দেশের কর্মক্ষেত্রগুলোতে দেশের জনশক্তি কাজে লাগাতে হবে। এ জন্য তরুণ প্রজন্মের দক্ষতা উন্নয়নে নজর দিতে হবে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে ‘গ্রিন এনার্জিতে বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ  সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিন দিনব্যপী ‘১৮তম নবায়নযোগ্য জ্বালানি সম্মেলন ও গ্রিন এক্সপো ২০১৮’র কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়। সালমান এফ রহমান বলেন, দেশের পুরো অর্থনীতি এখন বেসরকারি খাতের ওপর নির্ভরশীল। বেসরকারি বিনিয়োগকারীদের অনুকূল পরিবেশ তৈরি করে দেয়ায় তারা সরকারকে এর ফলাফল দেখাতে সক্ষম হচ্ছেন। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ার বিদ্যুৎ খাত। এর সঙ্গে নবায়নযোগ্য জ্বালানি সংক্রান্ত উদ্যোগগুলোও এগিয়ে নিতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শক্তি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. সাইফুল হকের সভাপতিত্বে সম্মেলনের তৃতীয় দিন সকালের সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের বিদেশ বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য মেহজাবিন খালেদ এমপি, বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) অতিরিক্ত সচিব অজিত কুমার পাল এফসিএ, প্র্যাক্টিক্যাল অ্যাকশন বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর হাসিন জাহান ও কনফিডেন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার অ্যান্ড কনফিডেন্ট ব্যাটারিজ লিমিটেড ব্যবস্থাপনা পরিচালক সালমান করিম। অজিত কুমার পাল বলেন, নতুন উদ্যোক্তাদের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমে গ্রিন এনার্জির পথে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। হাসিন জাহান বলেন, বেসরকারি খাত এগিয়ে আসা ছাড়া গ্রিন এনার্জির উন্নয়ন সম্ভব নয়। সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগগুলো সমন্বিত করে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শক্তি ইনস্টিটিউট ও বাংলাদেশ সৌরশক্তি সমিতির যৌথ উদ্যোগে এই জাতীয় সেমিনার ও নবায়নযোগ্য শক্তি প্রযুক্তির সরঞ্জমাদির প্রদর্শনী হচ্ছে।

-ফেসবুক কমেন্টস-

মন্তব্য