ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পক্ষে রায় সুপ্রিম কোর্টের

ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পক্ষে রায় সুপ্রিম কোর্টের
আইন-আদালত আমেরিকা শীর্ষ

ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পক্ষে রায় সুপ্রিম কোর্টের। সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার আদেশ পুরোপুরি কার্যকর করার ক্ষমতা পেল যুক্তরাষ্ট্রের ইমিগ্রেশন দপ্তর।
প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের তৃতীয় দফার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার নির্বাহী আদেশ পুরোপুরি কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল ৪ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট যে নির্দেশনা দিয়েছেন, এতে প্রশাসনের তরফে জারি করা ৮টি দেশ থেকে সব ধরনের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া যাবে।
৮ দেশের মধ্যে ৬টি প্রধানত মুসলিম দেশ। দেশগুলো হলো ইরান, সিরিয়া, সোমালিয়া, লিবিয়া, ইয়েমেন, চাদ ও উত্তর কোরিয়া। এর বাইরে ভেনেজুয়েলার কিছু নাগরিক ও গোষ্ঠীকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে বাধা দেওয়ার বিধান ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশে রয়েছে।

প্রথম দফার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাকে ওয়াশিংটন অঙ্গরাজ্যের আদালত স্থগিত করে দেন। পরে চলতি বছরের জুলাইয়ে দ্বিতীয় দফায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করে ট্রাম্প প্রশাসন। সেটিও আদালত স্থগিত করে দেন। রাষ্ট্রের নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে ট্রাম্প প্রশাসন তৃতীয় নির্বাহী আদেশ জারি করে। এই আদেশে ইরাককে বাদ দিয়ে ৬টি দেশের কথা বলা হয়। সেটি আংশিক কার্যকর করা হয়েছিল বেশ কয়েক মাস আগে। সুপ্রিম কোটের গতকালের রায়ের পর তৃতীয় দফার ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার নির্বাহী আদেশটি পুরোপুরি কার্যকর করার ক্ষমতা পেল যুক্তরাষ্ট্রের ইমিগ্রেশন দপ্তর। ফলে সংশ্লিষ্ট দেশ থেকে যেকোনো নাগরিকের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। একই সঙ্গে ওই দেশগুলোর যত নাগরিক যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে পড়াশোনাসহ অন্যান্য কাজে আছেন, তাদের সেই সুযোগ বন্ধ হয়ে যেতে পারে।
তবে সব দেশের ক্ষেত্রে ট্রাম্প প্রশাসনের আদেশ পুরোপুরি বাস্তবায়ন না-ও হতে পারে। যেমন, ইরান থেকে এখনো পড়াশোনার প্রয়োজনে যুক্তরাষ্ট্রে যোগ্যরা প্রবেশ করতে পারবে বলে বলা হয়েছে।
ট্রাম্প প্রশাসনের জারি করা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার আদেশ আগে সুপ্রিম কোট আংশিক অনুমোদন দিয়েছিলেন। কিন্তু এখন কেন পুরোপুরি অনুমোদন দিলেন, তার কোনো ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি।
বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর ও বিশ্লেষণে বলা হচ্ছে, সুপ্রিম কোটের অবস্থান পরিবর্তন ট্রাম্প প্রশাসনের একটি বড় আইনি বিজয়ের সমতুল্য। কেননা, আগে সংবিধান ও যুক্তরাষ্ট্রের মূল্যবোধের পরিপন্থী বলে অঙ্গরাজ্য পর্যায়ের আদালতগুলো এই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার নির্দেশনা স্থগিত করে দিয়েছিলেন।

-ফেসবুক কমেন্টস-

মন্তব্য